Published On: Thu, Nov 8th, 2018

কি হৃদয়বিদারক! অথৈ কি জানতো পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ আশ্রয়স্থলই তাকে চিরতরে আশ্রয়হীন করবে

১০ থেকে ১২ লাখ টাকা পরিশোধ করতে না পেরে নিজ মেয়েকে বিষ খাইয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে পাওনাদারদের ফাঁসানোর চেষ্টা করেছে এক পাষন্ড পিতা। এ ঘটনায় বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের পানি শাখার কর্মচারী ঘাতক পিতা কাজী গোলাম মোস্তফাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ওই হত্যাকাণ্ডের পর তাৎক্ষণিক কোনো ক্লু না পেলেও নিহত অথৈর বাবা বার বার তার পাওনাদারদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করছিলেন। পাওনাদারদের জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ ওই হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে কোনো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য না পাওয়ায় অথৈর বাবাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করে। এক পর্যায়ে পাওনাদারদের ফাঁসাতে মেয়ে অথৈকে হত্যার কথা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে গোলাম মোস্তফা।

বুধবার বেলা ১২টায় বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ (বিএমপি) কমিশনার কার্যালয়ের হলরুমে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান বিএমপি কমিশনার মোশারফ হোসেন।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার (৬ নভেম্বর) সকালে মেয়ে সাবিয়া আক্তার অথৈকে (১১) নগরীর সদর রোডের অনামী লেনে বিসিসির পাম্প হাউজে নিয়ে বিষ খাইয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে তারই নিজ বাবা।

পরে মরদেহে বোরখা পড়িয়ে সদর উপজেলার চরবাড়িয়া ইউনিয়নের সাপানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সংলগ্ন একটি লেবু বাগানে ফেলে রেখে যায়। পরে ময়নাতদন্ত শেষে অথৈর মরদেহ ওই দিনই তাদের পরিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়। অথৈ সাপানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী ছিলেন।

এ ঘটনায় নিহতের মা সোহেলী ইসলাম রুমা বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে গতকাল মঙ্গলবার রাতে নগরীর কাউনিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ ওই হত্যাকাণ্ডের পর তাৎক্ষণিক কোনো ক্লু না পেলেও অথৈর বাবা বার বার তার পাওনাদারদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করছিলেন।

এক পর্যায়ে পাওয়ানারদের ফাঁসাতে মেয়ে অথৈকে হত্যার কথা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে গোলাম মোস্তফা। পরে এই মামলার সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে গোলাম মোস্তফাকে গ্রেফতার দেখিয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণের জন্য আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।